জম্মুর পুলিশ ফাঁড়িতে জঙ্গি হামলা, ৬ জন নিহত

শ্রীনগর থেকে আদীল শাহ
2015.03.20
Share on WhatsApp
Share on WhatsApp
Ind-jammu জম্মুর খাতুয়ায় পুলিশ ফাঁড়িতে জঙ্গিদের আক্রমনে ২ জঙ্গি সহ ৬ জন মারা যায়। ছবিতে একজন নিহত জঙ্গি মাটিতে পড়ে আছে। ২০ মার্চ ২০১৫
এএফপি

জম্মু’র খাতুয়া শহরে শুক্রবার (২০ মার্চ) পুলিশের একটি ফাঁড়ি আক্রমনকালে দুই জঙ্গি সহ ৬ জন নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে।সরকারী পক্ষ থেকে বলা হয়,শুক্রবার ভোরে  ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের কাছে দুই জঙ্গি খাতুয়ার রাজবাঘ পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালালে সবমিলে ৬ জন মারা যায়।

উল্লেখ্য, ভারতীয় জনতা পার্টি ও পিপল ডেমোক্র্যাট পার্টি মিলে জোট সরকার গঠিত হবার পর এই প্রথম বড় ধরনের জঙ্গি হামলা সংঘটিত হলো।

খাতুয়ার ডেপুটি পুলিশ কমিশনার শহীদ ইকবাল বেনার নিউজকে বলেন, “দুইজন সিআরপিএফ সদস্য, একজন পুলিশ সদস্য এবং বেসামরিক নাগরিক এই অভিযানে মারা যায়।আক্রমনের সময় ৬ জন পুলিশ সদস্য পুলিশ ফাঁড়ির ভিতরে অবস্থান করছিল।জঙ্গিরা সেনাবাহিনীর পোশাক পড়া ছিল”।

ইকবাল জানান, “এই পুলিশ ফাঁড়িটিতে এক ইউনিট সিআরপিএফ-এর সদস্যরাও অবস্থান করছিল।জঙ্গিরা প্রথমে ফাঁড়ির বাইরে পাহারারত একজন পুলিশ কনস্টেবলকে, পরে দুই সিআরপিএফ সদস্যকে গুলি করে মারে।হামলায় ১১ জন আহত হয়”।

দুই পক্ষের মধ্যে ৬ ঘন্টা ধরে গুলি বিনিময় চলে, দুই জঙ্গির নিহত হবার মধ্যদিয়ে এই তা শেষ হয়।পুলিশ জানায়, জঙ্গিরা হাইওয়ে থেকে একটি জীপ হাইজ্যাক করে ড্রাইভারকে খুন করে পরে এই ফাঁড়িতে হামলা করতে আসে।

রাজ্য পুলিশ প্রধান কে রাজেন্দ্র বেনার নিউজকে বলেন, “আমাদের বাহিনী ২ জঙ্গিকে খতম করেছে।এরপর নিরাপত্তা বাহিনী এই এলাকায় সার্চ অপারেশন চালায়”।
জম্মু ও কাশ্মির এসেম্বলিতে এই ঘটনা আলোচিত হয়।বিরোধী দলের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে এই হামলার ঘটনার ব্যাখ্যা দাবি করা হয়।কংগ্রেসের প্রতিনিধি জানতে চান কিভাবে এই হামলা হলো, কি প্রকারে জঙ্গিরা আক্রমন চালাতে পারলো।

ডেপুটি চীফ মিনিস্টার নির্মল সিং হাউজে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরেন, কিন্তু বিরোধী দলের পক্ষ থেকে বলা হয়, এই জবাব ‘অসন্তোষজনক’।জম্মু ও কাশ্মির বিধান সভার স্পীকার কাভিন্দর গুপ্ত এই হামলার তীব্র নিন্দা জানান।

কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং ভারতীয় সংসদে এক বিবৃতিতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের দ্রুত একশন এবং ২ জঙ্গিকে গুলি করে মারায় তার প্রশংসা করেন।
রাজ্যের সাবেক চীফ মিনিস্টার ওমর আব্দুল্লাহ টুইটারে এই কাপুরুশোচিত হামলার নিন্দা জানান এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সাহসের তারিফ করেন।এই হামলাকে তিনি অতীতের মতো একই কায়দার বলে উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, এই অঞ্চলে এই ধরনের হামলা এইবারই প্রথম নয়।খাতুয়া জেলায় গত বছর মার্চে একটি গাড়িতে হামলা চালিয়ে একজনকে মারে এবং ৩ জনকে আহত করে।২০১৩ সালে খাতুয়ার ৩ জঙ্গি একটি থানায় আক্রমন চালায় পরে সাম্বার কাছে একটি আর্মি ক্যাম্পে হামলা করে, এতে ১০ জন নিহত হয়।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।