খুনের বিচার চাইলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা

ঢাকা থেকে শাহরিয়ার শরীফ
2016.04.27
Share on WhatsApp
Share on WhatsApp
2016-04-27-000620.jpg প্রিয় শিক্ষক রেজাউল করিমকে হত্যার প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন ও সড়ক অবরোধ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভ। এপ্রিল ২৭, ২০১৬।
ফোকাস বাংলা

গত শনি থেকে সোমবারের মধ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপক, যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা সংস্থা ইউএসএআইডির এক কর্মকর্তা ও তার এক বন্ধুকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় দেশে–বিদেশে প্রশ্নবানে বিদ্ধ হচ্ছে সরকার। রাজনৈতিক অঙ্গনে যুক্তিতর্ক চলছে।

চাঞ্চল্যকর এসব খুনের প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, যেখানে দুর্বৃত্তরা অপরাধ করেও ‘পার পেয়ে’ যাচ্ছে। যদিও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, সব ঘটনার বিচার হচ্ছে ও হবে।’

গতকাল বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বার্নিকাট।

এদিকে জোড়া খুনের ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী, নিহত জুলহাসের বাসার নিরাপত্তারক্ষী পারভেজ মোল্লা জানিয়েছেন, হত্যায় মোট সাতজন অংশ নেয়।

গতকাল বুধবার দুপুরে জুলহাসের বাসার ফটকের সামনে পারভেজ সাংবাদিকদের জানান, “জুলহাসের বাসার ফটকে প্রথমে চারজন পার্সেলের তিনটি বক্স নিয়ে এসে বলে, পার্সেলগুলো জুলহাস স্যারের। ওই চারজন ঘরে ঢুকে জুলহাস ও তনয়কে কুপিয়ে চলে যায়। কোপানোর সময় তারা ‘আল্লাহু আকবর’ বলে। নিচে নামার সময় পারভেজ দেখেন, গেটের সামনে আরও দুজন ও গেটের বাইরে একজন দাঁড়িয়ে।”

রাষ্ট্রদূতের বৈঠক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে

বৈঠকে রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট এসব হত্যায় আইএস এর মতো মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিদের জড়িত থাকার কথা বললেও তা মানতে রাজি হননি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল।

মন্ত্রী বলেন, যেসব ঘটনা এখানে ঘটছে, সেগুলো ‘হোমগ্রোন’ জঙ্গিদের কাজ। বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এসব সন্ত্রাসীকে নির্মূলে কাজ করছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশে আইএসের উপস্থিতি বিষয়ে বার্নিকাট জোরালোভাবে কিছু বলেননি।

“আমরা (বার্নিকাটকে) বলেছি, সারা বিশ্বে খুন, হত্যা হচ্ছে। আপনাদের দেশেও হচ্ছে। দুইজন নিরীহ বাঙালিকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।”

“আমরা বলেছি, আসুন আমরা একসঙ্গে মোকাবেলা করি। কোনো তথ্য থাকলে আমাদের দিন, পুলিশের যে ইউনিটগুলো আমাদের আছে, সেগুলো প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করুন।”

বিষয়টি দেখভালের জন্য রাষ্ট্রদূতের পরামর্শ মতো মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবকে ফোকাল পয়েন্ট করে দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী এ বিষয়ে একটি ‘সেল’ও গঠন করা হবে বলে জানান আসাদুজ্জামান।

যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআইসহ অন্যান্য দেশের গোয়েন্দাদের সঙ্গে তথ্য আদান-প্রদানের প্রক্রিয়া আরও জোরদার করা নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত সোমবার বিকালে কলাবাগানের লেক সার্কাস এলাকায় বাসায় ঢুকে কুপিয়ে খুন করা হয় ইউএসএআইডি বাংলাদেশের কর্মসূচি কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নান ও নাট্যকর্মী মাহবুব রাব্বী তনয়কে।

জুলহাজ সমকামী ও হিজড়া অধিকার বিষয়ে প্রকাশিত সাময়িকী ‘রূপবান’ সম্পাদনায় যুক্ত ছিলেন।

এর দুইদিন আগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে তার বাড়ির কাছে একই কায়দায় হত্যা করা হয়।

জোড়া খুনের ঘটনা প্রসঙ্গে পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ঘটনার পাঁচ মিনিটের মধ্যে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। সেই দিন পুলিশ একজনকে জাপটে ধরেছিল কিন্তু অন্য দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে আহত করে। পুলিশ গুলি করেছিল। কিন্তু রাস্তায় মানুষ থাকায় তারা দ্বিতীয় গুলি করেনি।

জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

“আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর থাকার ফলে সন্ত্রাসবাদ এবং জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে,” জাতীয় সংসদে এ কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই কারণে বাংলাদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগ বাড়ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তরুন সাংসদ কাজী নাবিল আহমদের প্রশ্নের জবাবে বুধবার সংসদে এ কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। যদিও এসব প্রশ্নের উত্তর কয়েকদিন আগে তৈরি হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের ফলে দেশে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। মানুষ ন্যায়বিচার পাচ্ছে।

এদিকে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া গতকার এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, রাজধানীর কলাবাগানে বাসায় ঢুকে হত্যার ঘটনায় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও আলামত পাওয়া গেছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এ মুহূর্তে তা প্রকাশ করা যাচ্ছে না।

আল-কায়েদা ভারতীয় উপমহাদেশের (একিউআইএস) কথিত বাংলাদেশ শাখা ‘আনসার আল ইসলাম’-এর হত্যার দায় স্বীকার সম্পর্কে ডিএমপি কমিশনার বলেন, এ ধরনের যত ঘটনা ঘটে, তার দুই-এক ঘণ্টার মধ্যে বিদেশ থেকে এ নিয়ে দায় স্বীকারের কথা বলা হয়। এর যৌক্তিকতা এবং বাস্তবতা কতটুকু আছে, তা ভেবে দেখা হচ্ছে।

সব বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মবিরতি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দ্রুত বিচারসহ তিন দফা দাবি আদায়ে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী ৩ মে তিন ঘণ্টা কর্মবিরতি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকালও এই হত্যার বিচার দাবিতে রাজশাহীসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

কালো ব্যাজ ধারণ করে একযোগে শিক্ষকেরা ৩ মে নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত স্থানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন।

শিক্ষকদের অন্য দাবির মধ্যে আছে জঙ্গিবাদী গোষ্ঠীর এরূপ ‘অনৈসলামিক’ এবং নিষ্ঠুর ও পাশবিক কর্মকাণ্ড বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকসহ জননিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

“আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরাও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। ক্যাম্পাসে আতঙ্ক যেমন আছে, তেমনি নেওয়া হচ্ছে সতর্কতামূলক বিভিন্ন ব্যবস্থা,” বেনারকে জানান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ইফতেখার আহমেদ চৌধূরী।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।