শর্তসাপেক্ষে ঢাকায় শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়ার ঘোষণা দিলেন পরিবহন মালিকরা

জেসমিন পাপড়ি
ঢাকা
2021-11-30
Share
শর্তসাপেক্ষে ঢাকায় শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়ার ঘোষণা দিলেন পরিবহন মালিকরা ঢাকার রামপুরায় বাসচাপায় এসএসসির ফলপ্রত্যাশী মাঈনুদ্দিন ইসলাম নিহত হওয়ার ঘটনার বিচার চেয়ে সড়ক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ৩০ নভেম্বর ২০২১।
[সাবরিনা ইয়াসমীন/বেনারনিউজ]

আন্দোলনের মুখে শর্ত সাপেক্ষে শুধু ঢাকায় গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়া চালুর ঘোষণা দিয়েছেন পরিবহন মালিকেরা। তবে ওই ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের জন্য আগে দেওয়া নয় দফা দাবির বাকিগুলো মেনে প্রজ্ঞাপন জারি না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

“পরিবহন মালিকেরা বিভিন্ন শর্ত জুড়ে দিয়ে শুধু ঢাকায় হাফ পাস চালুর ঘোষণা দিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রহসন করেছেন। আমরা তাদের কোনোরকম শর্ত মানি না,” বেনারকে বলেন আন্দোলনকারীদের অন্যতম সমন্বয়ক ইসমাইল সম্রাট।

তিনি বলেন, “মৌখিক ঘোষণায় নয়, সারা দেশের সব শিক্ষার্থীর জন্য হাফ পাস চালুর ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে। অন্যথায় আমাদের আন্দোলন চলবে এবং তা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে।”

“দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষার্থীরা হাফ পাস এবং নিরাপদ সড়কের দাবি করে আসলেও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি আসেনি। আমরা খুব হতাশ এবং ক্ষুব্ধ হয়েছি। অথচ পেট্রোলের দাম বাড়তেই সব গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দিয়ে অযৌক্তিক ভাড়া বৃদ্ধিতে পরিবহন মালিকেরা মাত্র দুই দিনে সরকারকে বাধ্য করেছে,” বলেন ইসমাইল সম্রাট।

দাবি পূরণ না হলে আগামী ৭ ডিসেম্বর নীলক্ষেত থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে সংসদ ভবন অভিমুখে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে মঙ্গলবার এক এক সংবাদ সম্মেলনে শর্তসাপেক্ষে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। এ সিদ্ধান্ত ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হবে।

তিনি বলেন, “নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছবিযুক্ত পরিচয়পত্র দেখিয়ে সকাল সাতটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত হাফ ভাড়া দেওয়া যাবে। সাপ্তাহিক ছুটি, সরকারি ছুটি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মৌসুমি ছুটির সময় হাফ ভাড়া দেওয়া যাবে না।”

“এই সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র ঢাকা মেট্রো এলাকার জন্য কার্যকর হবে, কোনোভাবে ঢাকার বাইরের জন্য কার্যকর হবে না,” বলেও জানান তিনি। 

এ ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা রাজধানীর বনানীতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল বিআরটিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করে ৯ দফা দাবিও উত্থাপন করেন।

পরে তাঁদের একজন স্টেট ইউনিভার্সিটির ছাত্র ইনজামুল হক সাংবাদিকদের জানান, দাবি পূরণের বিষয়ে তেমন কোনো আশ্বাস মেলেনি। বুধবারও সারা দেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে।

এ ছাড়া দাবি পূরণ না হলে আগামী ৭ ডিসেম্বর নীলক্ষেত থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে সংসদভবন অভিমুখে যাবে বলে জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। 

‘শিক্ষার্থীদের আন্দোলন যৌক্তিক’

হাফ পাসের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন শতভাগ যৌক্তিক বলে মত দিয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাইয়ের (নিসচা) চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি বেনারকে বলেন, “হাফ ভাড়ার সুযোগ পাওয়া সারা দেশের সকল শিক্ষার্থীদের অধিকার।”

“একইসঙ্গে তারা নিরাপদ সড়কের দাবি করে যাচ্ছে। এই আন্দোলনের মধ্যেই রাস্তায় প্রতিদিন প্রাণ যাচ্ছে। এগুলো কোনোভাবেই দুর্ঘটনা নয়, হত্যা। তাই নিরাপদ সড়কের দাবি পূরণ না করলে শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরানো যাবে না,” বলেন তিনি।

এবার জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পর গণপরিবহনে অর্ধেক ভাড়ার (হাফ পাস) দাবিতে ঢাকাসহ কয়েকটি এলাকায় প্রতিবাদ, বিক্ষোভ প্রদর্শন করে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। এরই মধ্যে ঢাকায় গাড়ি চাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে নিরাপদ আন্দোলনের দাবিও এর সাথে বেগবান হয়। 

শিক্ষার্থীদের টানা বিক্ষোভের মুখে অর্ধেক ভাড়া ইস্যু নিয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের সাথে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের কয়েক দফা বৈঠক হয়। তবে সেসব বৈঠকে কোনো সুরাহা আসেনি।

এদিকে শিক্ষার্থীরাও প্রতিদিন রাস্তায় নেমে নিরাপদ সড়ক, হাফ ভাড়াসহ নয় দফা দাবিতে বিক্ষোভ চালিয়ে যেতে থাকেন। পরে মঙ্গলবার শর্ত সাপেক্ষে হাফ ভাড়া চালুর ঘোষণা নিয়ে আসে পরিবহন মালিকেরা।

ঢাকার রামপুরায় বাসচাপায় শিক্ষার্থী মাঈনুদ্দিন নিহত হওয়ার ঘটনার বিচার চেয়ে সড়ক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ৩০ নভেম্বর ২০২১। [বেনারনিউজ]
ঢাকার রামপুরায় বাসচাপায় শিক্ষার্থী মাঈনুদ্দিন নিহত হওয়ার ঘটনার বিচার চেয়ে সড়ক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ৩০ নভেম্বর ২০২১। [বেনারনিউজ]

ঢাকার সড়কে আবারও প্রাণ গেলো শিক্ষার্থীর

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই সোমবার রাতে পূর্ব রামপুরার ডিআইটি রোড বাসের চাপায় প্রাণ যায় মো. মাঈনউদ্দিন নামের এক শিক্ষার্থীর; রাজধানীর একরামুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি দিয়েছিল সে।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। মঙ্গলবার রাতেই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী গ্রিন অনাবিল পরিবহনের বাসটিসহ অন্তত আটটি বাসে তাঁরা আগুন ধরিয়ে দেন। সকালে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে। এর ফলে যানজটে প্রায় স্থবির হয়ে পড়ে পুরো শহর।

এর আগে গত ২৪ নভেম্বর (বুধবার) সকালে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ যায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের(১৭)।

নিরাপদ সড়ক এবং অর্ধেক বাস ভাড়ার দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নেতা ইসমাইল সম্রাট বলেন, “আমাদের আন্দোলনের মধ্যেই দুজন ছাত্রের প্রাণ গেলো রাস্তায়। এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক।”

“এদের মধ্যে মঙ্গলবার রাতে নিহত মাঈনউদ্দিনকে হাফ ভাড়া নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে বাস থেকে ফেলে দেয়া হয়। এরপর অন্য একটি বাস তাকে চাপা দিলে সে প্রাণ হারায়,” বলেন তিনি।

“হাফ ভাড়াকে কেন্দ্র করে জীবন গেলেও সরকারের টনক নড়ছে না। আজকের পরিবহন মালিকদের পক্ষ থেকে শর্ত সাপেক্ষে যে হাফ ভাড়ার ঘোষণা এসেছে তা ছাত্র সমাজের সাথে প্রহসন,” বলেন তিনি।

মন্তব্য করুন

নীচের ফর্মে আপনার মন্তব্য যোগ করে টেক্সট লিখুন। একজন মডারেটর মন্তব্য সমূহ এপ্রুভ করে থাকেন এবং সঠিক সংবাদর নীতিমালা অনুসারে এডিট করে থাকেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্তব্য প্রকাশ হয় না, প্রকাশিত কোনো মতামতের জন্য সঠিক সংবাদ দায়ী নয়। অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন এবং বিষয় বস্তুর প্রতি আবদ্ধ থাকুন।

পুর্ণাঙ্গ আকারে দেখুন